ফুলব্রাইট বৈদেশিক শিক্ষার্থী কার্যক্রম ২০২১-২২

fulbright scholarship bangladesh

ঢাকাস্থ যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস এ বছরের ফুলব্রাইট বৈদেশিক শিক্ষার্থী কার্যক্রমের আওতায় যুক্তরাষ্ট্রে পূর্ণ অর্থায়নে স্নাতকোত্তর পর্যায়ে অধ্যয়নের জন্য অনুদান প্রদানের লক্ষ্যে আবেদন গ্রহণ করছে। অগ্রাধিকার প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশী বিশ্ববিদ্যালয়ের তরুণশিক্ষক ; গবেষণা প্রতিষ্ঠান, বুদ্ধিবৃত্তিক প্রতিষ্ঠান ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠানসমূহের কনিষ্ঠ থেকে মধ্য পর্যায়ের কর্মী, এবং সরকারী ও ব্যক্তিমালিকানাধীন খাতের কনিষ্ঠ থেকে মধ্য পর্যায়ের পেশাজীবীগণ। যেসব বিষয়ে ডিগ্রি গ্রহণে এই অনুদান দেয়া হবে সেগুলো নিম্নরূপ:

শিক্ষা: উচ্চশিক্ষা প্রশাসন/ শিক্ষানীতি, পরিকল্পনা ও পরিচালনা/ পাঠ্যক্রম ও নির্দেশাবলীর সকল বিষয়
সামাজিক বিজ্ঞান ও মানবিক শাখা: রাষ্ট্রবিজ্ঞান/ সমাজবিজ্ঞান/ ইতিহাস/ সাহিত্য/ ভাষা ও সংস্কৃতি
ব্যবসায়: মানব সম্পদ ব্যবস্থাপনা/ আন্তর্জাতিক ব্যবসায়/ অপারেশন ম্যানেজমেন্ট / স্বাস্থ্যসেবা প্রশাসনে এমবিএ
অর্থনীতি: আন্তর্জাতিক অর্থনীতি/ বাণিজ্য ও অর্থ/ নীতি/ পরিবেশগত/প্রাকৃতিক সম্পদ বিষয়ক অর্থনীতি
বিজ্ঞানের মৌলিক শাখা: জীববিজ্ঞান/ রসায়ন/ পদার্থবিদ্যা/ ফার্মেসি
নগর পরিকল্পনা: সাধারণ পরিকল্পনা/ ভূমি ব্যবহার ও পরিবেশ পরিকল্পনা/ পরিবহন সিস্টেম/ নগর/ স্থানীয় উন্নয়ন
পরিবেশ বিদ্যা ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা
ফ্যাশন ও টেক্সটাইল ডিজাইন
জনপ্রশাসন/ জননীতি
মনোবিজ্ঞান – ক্লিনিক্যাল / কাউন্সেলিং
নিরাপত্তা বিদ্যা
ফুলব্রাইট অনুদান সুবিধার মধ্যে রয়েছে ফিরতি বিমানসহ যাতায়াত ভাড়া, শিক্ষাদান ও সংশ্লিষ্ট একাডেমিক ফিস, কক্ষ, আবাস ও আনুষঙ্গিক ব্যয় নির্বাহে মাসিক বৃত্তি, বই-পত্র ক্রয়ের ভাতা, স্বাস্থ্য ও দুর্ঘটনা বীমা, ভ্রমণ ভাতা, এবং অতিরিক্ত মালপত্রের ভাতা। কার্যক্রমটি অত্যন্ত নির্বাচনমূলক- আগের বছরগুলোতে শত শত আবেদন গ্রহণ ও পর্যালোচনার মাধ্যমে সাত থেকে আটটি অনুদান প্রদান করা হয়েছে।

যোগ্য বিবেচিত হতে আবেদনকারীকে অবশ্যই:

শিক্ষাক্ষেত্রে অসাধারণ রেকর্ড’সহ ন্যূনতম চার বছর মেয়াদী স্নাতক ডিগ্রি নিয়ে থাকতে হবে।
যুক্তরাষ্ট্রের কোন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডিগ্রি, অথবা বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে কোন ডিগ্রি প্রোগ্রামে ভর্তি হয়ে থাকলে প্রযোজ্য হবে না।
তৃতীয় কোন দেশ থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি নিয়ে থাকলে হবে না (বাংলাদেশী স্নাতকোত্তর ডিগ্রি থাকলে তারা যোগ্য বিবেচিত হবেন।)
প্রস্তাবিত শিক্ষা বিষয়ের সাথে প্রাসঙ্গিক কর্মক্ষেত্রে ন্যূনতম দুই বছরের পূর্ণকালীন পেশাদারী অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।
iBT TOEFL-এ ন্যূনতম ৮০/ IELTS-এ ন্যূনতম ৭.০ স্কোর নিয়ে ইংরেজীতে পারদর্শী হতে হবে।
ভালো স্বাস্থ্যের অধিকারী হতে হবে।
আবেদনের সময়ে বাংলাদেশে বসবাসকারী বাংলাদেশী নাগরিক হতে হবে।
ডিগ্রি সম্পন্ন হওয়ার আগেই বাড়ি ফিরে এলে ফিরতি বিমান টিকেটের মূল্য ফেরত দিতে সম্মত হতে হবে।
আবেদনকারীদেরকে আগামী ২০শে জুন ,২০২০, শনিবারের মধ্যে অনলাইনে আবেদন পেশ করতে হবে। সম্ভাব্য প্রার্থীদেরকে আবেদনপত্র পূরণের আগে আবেদনের নির্দেশনাসমূহ ভালোভাবে পড়ে নেয়ার জন্য অনুরোধ করা হচ্ছে।

অললাইন আবেদন করতে আবেদনকারীরা সরাসরি এই লিঙ্কে যেতে পারেন: https://apply.iie.org/ffsp2021/

আগামী ২০শে জুন , ২০২০, শনিবারের মধ্যে অনলাইন আবেদন করার সময়ে নিম্নলিখিত সম্পূরক ফর্মগুলো অবশ্যই আপলোড করতে হবে:

মাধ্যমিক পরবর্তীকালে অংশ নেয়া প্রতিটি প্রতিষ্ঠান (স্নাতক ও স্নাতকোত্তর) থেকে শিক্ষা প্রতিলিপি (academic transcript) ও সনদপত্র।
তিনজন সুপারিশকারী সরাসরি অনলাইন আবেদন পোর্টালে তিনটি সুপারিশ পত্র (letters of reference) উপস্থাপন করবেন। (সম্ভাব্য প্রার্থীরা অবশ্যই অনলাইন আবেদন সাইটে দেয়া “Recommender Registration” বাটনের মাধ্যমে নিজ নিজ সুপারিশকারীদের নিবন্ধন করবেন।)
একাডেমিক রেকর্ড বিষয়ক তথ্যাদির ফর্ম (অনলাইন আবেদন সাইটে পাওয়া যাবে।)
TOEFL / IELTS স্কোর।
যুক্তরাষ্ট্রে স্নাতকোত্তর প্রোগ্রামে ভর্তির জন্য প্রতিযোগিতামূলক GRE অথবা GMAT স্কোরও আবশ্যক। এ ধরনের স্কোর থাকলে আবেদনকারীদেরকে সেগুলোও অনলাইন আবেদনের সাথে উপস্থাপন করতে হবে। না থাকলে আমেরিকান সেন্টার শুধু প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত প্রার্থীদের জন্য পরীক্ষার আয়োজন করতে পারে। ভর্তির জন্য প্রমিত পরীক্ষাগুলোতে (TOEFL/GRE/GMAT) প্রতিযোগিতামূলক স্কোর জরুরী বিধায় সম্ভাব্য প্রার্থীদেরকে অবশ্যই ভালোভাবে আগাম প্রস্তুতি নিতে হবে।