অনলাইন থেকে আয়ের উপায় সমূহ

How to earn money online

অনলাইন উপার্জন বর্তমানে বাংলাদেশের যুব সমাজের মধ্যে এক গুরুত্যপূর্ণ এবং আলোচিত বিষয় । চাকরি খোঁজার পাশা পাশি যুব সমাজের এক বিশাল জনগোষ্টি অনলাইন উপার্জন বা অনলাইন আর্নিং এর প্রতি ধাবিত হচ্ছে , যাঁকে আমরা Outsourcing পেশা হিসেবে জানি । অনলাইন থেকে যে কেউ উপার্জন করতে পারে । আপনি যদি কম্পিউটারের বেসিক জ্ঞানসম্পন্ন একজন কঠোর পরিশ্রমী মেধাবী ব্যক্তি হন এবং আপনার যদি একটা কম্পিউটার এবং বাসায় ইন্টারনেট সংযোগ থাকে তাহলে আপনি ও ঘরে বসে প্রচুর অর্থ উপার্জন করতে পারেন ।

How to earn money online

অনলাইন জবস:
তথ্যপ্রযুক্তির সুযোগকে কাজে লাগিয়ে মোবাইল, ইন্টারনেট, কম্পিউটার বা অন্যান্য ডিভাইস এর মাধ্যমে দেশ-বিদেশের কোম্পানিতে কাজ করার মাধ্যমে অনলাইনে আয় করার প্রক্রিয়াকে বলা হয় অনলাইন জব। আমরা বিভিন্ন অফিসে যেমন জব করি তেমনি অনলাইন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে জব করতে পারি। আমরা অনেক বেশিই প্রযুক্তি নির্ভর হয়ে যাওয়ায় অনলাইনে বিভিন্ন ধরনের জব এর দ্বার উন্মুক্ত হচ্ছে। এর ফলে কর্মসংস্থানের সুযোগ বৃদ্ধি পাচ্ছে। অনলাইন জব এর সবচেয়ে বড় সুবিধা হল, ঘরে বসে আপনি অফিসিয়াল কাজ সম্পাদন করতে পারবেন।

তথ্যপ্রযুক্তির উন্নয়নের ফলে বেড়েছে কাজের পরিধি। ঘরে বসে সাধারণত সব কাজ করা সম্ভব নয়। সাধারণত যেসব কাজ ভার্চুয়ালি করা যায় ওই সব কাজই অনলাইন এ পাওয়া যায়।যথা – অফিসিয়াল ওয়েবসাইট মেইনটেইন করা , সার্ভার দেখাশোনা করা , ডাটাবেস এর কাজ এবং আরো হরেক রকমের।

ফ্রিল্যান্সিং জবস:
ফ্রিল্যান্সিং এর অর্থ হলো স্বাধীন বা মুক্তপেশা। অন্যভাবে বলা যায়, নির্দিষ্ট কোন প্রতিষ্ঠানের অধীনে না থেকে স্বাধীনভাবে কাজ করা কে ফ্রিল্যান্সিং বলে।ফলে মুক্ত পেশাজীবীরা ঘরে বসেই তাদের কাজ করে উপার্জন করতে পারেন। এ পেশার মাধ্যমে অনেকে প্রচলিত চাকরি থেকে বেশি আয় করে থাকে।

বর্তমানে অনলাইন কাজের বিভিন্ন প্লাটফর্ম গড়ে উঠেছে। এই প্লাটফর্মগুলো সাধারণত মধ্যবর্তী মিডিয়া হিসেবে কাজ করে। এই সমস্ত প্লাটফর্ম থেকে প্রজেক্ট বেইস কিংবা ঘন্টা হিসেবে কাজ পাওয়া যায়। এই কাজগুলোকে আমরা ফ্রীল্যানসিং জব বলে থাকি।

অনলাইন ওয়ার্ক:
সাধারণত যারা সর্বপ্রথম অনলাইন থেকে উপার্জনের চিন্তা ভাবনা করেন তারা অনলাইন ওয়ার্ক বা ডেইলি অনলাইন টাস্ক নিয়ে কাজ করে থাকে। এটা হচ্ছে অনলাইন থেকে আয়ের সব চেয়ে সহজ এবং প্রাথমিক পদ্দতি। তবে এই পদ্দতিতে শ্রম বেশি হলে ও উপার্জন হয় কম। অনলাইন সার্ভে করা , এডস দেখা , ওয়েব সার্ফিং, সাইন আপ করা ইত্যাদি।

ডিজিটাল মার্কেটিং:
ডিজিটাল মার্কেটিং মানে অনলাইনে পন্য বা সার্ভিসের বিজ্ঞাপন প্রচার করাকেই বুঝায়। এখন সেটা হতে পারে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে, হতে পারে সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং এর মাধ্যমে, হতে পারে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশনের মাধ্যমে, আবার হতে পারে ইমেইল মার্কেটিং এর মাধ্যমে।

ডিজিটাল মার্কেটিং কি এবং কি পরিমান অর্থ আয় করা যায়? এখানের যে কোন একটি বা একাধিক সেক্টরের উপর কাজ শিখে আপনি নিজেকে একজন সফল ডিজিটাল মার্কেটার হিসেবে গড়ে তুলতে পাড়েন। এবং আপনি যদি নিজেকে একজন সফল ও অভিজ্ঞ ডিজিটাল মার্কেটার হিসেবে গড়ে তুলতে পাড়েন আপনি মাসে লাখ টাকার উপরেও আয় করতে পারবেন।

এফিলিয়েট মার্কেটিং, সিপিসি মার্কেটিং, সিপিএ মার্কেটিং, সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং, ইমেইল মার্কেটিং হলো জনপ্রিয় মার্কেটিং পদ্দতি।

অনলাইন বিসনেস:
অনলাইন ব্যবসা হল যে সকল ব্যবসা ঘরে বসে ভার্চুয়াল ভাবে নিয়ন্ত্রণ করা যায় সেগুলো হচ্ছে অনলাইন ব্যবসা। অর্থাৎ যে সকল ব্যবসা একটি কম্পিউটার এবং ইন্টারনেট কানেকশনের মাধ্যমে কাস্টমারদের সাথে যোগাযোগ এবং সকল কার্যক্রম পরিচালনা করা সম্ভব সেগুলি হচ্ছে অনলাইন ব্যবসা।

অনলাইন ব্যবসা আপনি বিশ্বের যেকোন জায়গা থেকে ঘরে বসে পরিচালনা করতে পারবেন তার জন্য আপনার নির্দিষ্ট কোন জায়গা অথবা প্রতিষ্ঠানের প্রয়োজন নেই। অনলাইন ব্যবসা পরিচালনা করতে শুধুমাত্র আপনার একটি কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপ অথবা ভালো মানের একটি স্মার্টফোন ইন্টারনেট সংযোগ দিয়ে যে কোন জায়গা থেকেই পরিচালনা করতে পারবেন।

অনলাইন শপ , হোস্টিং সার্ভিসেস , ডিজিটাল কারেন্সী এক্সচেঞ্জ ইত্যাদি হলো অনলাইন বিসনেস।